ওয়েব ডেভলপারদের জন্য .htaccess টি খুবই প্রয়োজনীয় একটি টপিকস।  ওয়েব সাইট SEO ফ্রেন্ডলি করার জন্য,  সিকিউরিটির জন্য এবং বিভিন্ন ধরনের সমস্যা সমাধানের জন্য আমরা .htaccess ব্যবহার করা হয়। আমরা অনেকেই না বুঝে গুগল এ সার্চ করে htaccess করে নিয়ে না বুঝেই ব্যবহার করি আবার অনেকে তাও করি না। htaccess নিয়ে চেইন পোস্ট করা হবে। ইনশাল্লাহ্ এর পর থেকে না বুঝে htaccess ব্যবহার করা লাগবে না। এছারাও যারা ফ্রিল্যন্সিং করেন তাদের জন্য অনেক হেল্পফুল হবে  কারন মার্কেট প্লেস htaccess রিলেটেড অনেক কাজ পাওয়া যায়। 🙂

.htaccess সম্পর্কে কিছু কথাঃ

.htaccess হচ্ছে Apache ওয়েব সারভারে ব্যবহৃত কনফিগারেশন ফাইল। .htaccess মূলত একটি নামবিহীন ফাইল, .htaccess টাই হচ্ছে একটি এক্সটেনশন। এটি ডিফল্ট অবস্থায় হিডেন থাকে। এই ফাইলটি সাধারনত সারভারের রুট ডাইরেক্টরি তে থাকে তবে রুট ছাড়াও অন্য সাব ডাইরেক্টরিতে থাকে বা রাখা যায়।

সিপ্যনেল এ যদি ডিফল্ট অবস্থায় .htaccess না দেখতে পান তাহলে ফাইল ম্যনেজার ওপেন করার সময় Show Hidden Files (dotfiles). বক্সটি টিক দিয়ে দিন। তারপরেও যদি না দেখতে পান তাহলে .htaccess নামে একটি ফাইল তৈরি করে নিন।

hidden tik

.htaccess ফাইল কিভাবে তৈরি করবেনঃ

খুবই সিম্পল একটা ব্যপার, আপনি সরাসরি সিপ্যনেলেই .htaccess ফাইল তৈরি করতে পারবেন অথবা আপনার পিসিতে তৈরি করে তারপর আপলোড দিতে পারেন।

সরাসরি সিপ্যনেল তৈরিঃ

সিপ্যনেল New File এ ক্লিক করুন এবং নাম টি লিখুন (.) ডট htaccess এর পর Create New File বাটনে ক্লিক করুন। হয়ে গেল .htaccess ফাইল।

পিসিতে তৈরিঃ

যেকোনো ধরনের কোড এডিটর সফটওয়্যার যেমনঃ Notepad++  Sublime Text  Brackets এ (.) ডট htaccess নাম দিয়ে সেভ করলেই হবে এছারাও আমরা ইউন্ডোজ এর সাধারণ নোটপ্যাড দিয়েও করতে পারি। নোটপ্যাড ওপেন করে সেভ করার সময় ফাইল নেইম (.) ডট htaccess দিয়ে Save as type: থেকে All File দিয়ে সেভ দিতে হবে। ব্যস হয়ে গেল .htaccess ফাইল।

আপনাদের সুবিধার জন্য একটি .htaccess ফাইল জিপ করে দেওয়া হল আপনারা চাইলে এই জিপ ফাইলটি ডাউনলোড করে ব্যবহার করতে পারেন। DOWNLOAD

.htaccess কিভাবে কাজ করেঃ

অনেকেই প্রশ্ন করেন .htaccess ফাইলা কোথায় রাখব বা কখন রুটে রাখব; কখন সাব ডাইরেক্টরিতে রাখব। এ প্রশ্নের সঠিক সমাধান জানতে .htaccess কিভাবে কাজ করে সেটা জানা দরকার। সহজ ভাবে বলতে .htaccess ফাইলের কাজ করার ধরন টা আমরা CSS এর সাথে তুলনা করি। যেমনঃ যদি Body ট্যাগ এর ফন্ট সাইজ ১৪ পিক্সেল করা হয় তাহলে এই Body ট্যাগের ভিতরে যত প্যারাগ্রাফ, হেডিং বা আরও যত সাব এলিমেন্ট থাকবে সকলের ফন্ট সাইজ ১৪ হবে। আবার যদি ৳ ট্যাগের ভিতরে কোন Dic এর ফন্ট সাইজ ১৬ ব্যবহার করা হয় তাহলে ওই ডিভের ভিতরের সকল এলিমেন্ট এর ফন্ট সাইজ ১৬ হবে। .htaccess ফাইল্টাও ঠিক একই ভাবে কাজ করে মানেঃ আপনি যদি ফাইল টা রুটে রাখেন তাহলে ওই .htaccess ফাইলের কোড রুটের মধ্যে যদি সাব ডাইরেক্টরি আছে তার উপরও প্রভাব ফেলবে। কিন্তু যদি .htaccess ফাইট টি কোন সাব ডাইরেক্টরি/ফোন্ডারে রাখেন তাহলে ওই ফোন্ডারের ফাইল বা সাব ডাইরেক্টরি তে প্রভাব ফেলবে।

 

.htaccess এর চেইন পোস্ট সমূহঃ

.htaccess পাঠ ১ :: বেসিক

.htaccess পাঠ ২ :: htaccess ক্যরেক্টার বিস্তারিত

.htaccess পাঠ ৩ :: htaccess এর প্রয়োজনীয় টেকনিক/কোড (Coming Soon)

 

Recommended Posts

No comment yet, add your voice below!


Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *